adplus-dvertising

এক পরিবারে নৌকাসহ পাঁচ প্রার্থীর কেউ জেতেনি

এক পরিবারে নৌকাসহ পাঁচ প্রার্থীর কেউ জেতেনি, সোমবার সপ্তম ধাপে দেশের ১৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ পর্বে

কুমিল্লার

দেবিদ্বারের ফতেহাবাদ ইউনিয়নেও ভোট হয়েছে।চেয়ারম্যান পদে মোট ১৫ জন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। যেখানে নওকাসহ একই পরিবারের

পাঁচজন

প্রার্থী রয়েছেন। কিন্তু তারা সবাই পরাজিত হয়েছে। এমনকি আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহনাজ পারভীনও জামিন হারিয়েছেন।

তিনি

নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে ৬ষ্ঠ স্থান পেয়েছেন।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ dailypotrika.xyz

এক পরিবারে নৌকাসহ পাঁচ প্রার্থীর কেউ জেতেনি

ওই ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা আশরাফুন নাহার স্বাক্ষরিত বেসরকারি ফলাফল বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাকি চার প্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহনাজ পারভীনের শ্যালক খন্দকার এম এ সালাম, আনারস প্রতীকের সাবেক চেয়ারম্যান শাহনাজ পারভীনের সৎ ছেলে আল মামুন, শাহনাজ পারভীনের ভাইয়ের ছেলে খন্দকার ফখরুল ইসলাম ও খন্দকার মজিবুর রহমান। শ্বশুর খন্দকার এম এ সালাম। রহমান।
এর মধ্যে শাহনাজ পারভীনের শ্যালক খন্দকার এম এ সালাম আনারস প্রতীকে ৩ হাজার ৪৪৪ ভোট পেয়ে চতুর্থ হয়েছেন।

এছাড়া দুই পাতা প্রতীকে

শাহনাজ পারভীনের সৎ ছেলে আল মামুন পেয়েছেন সাত ভোট, তার দুই ছেলে খন্দকার ফখরুল ইসলাম ও খন্দকার মুজিবুর রহমান পেয়েছেন যথাক্রমে ২৫ ও ৫৩ ভোট। ওই ইউনিয়নে দোয়াত কালাম প্রতীকে ৪ হাজার ৫৩৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেলোয়ার হোসেন ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৪০৩ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহিদ হাসান চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ৩ হাজার ৫৪৪ ভোট এবং মফিজুল ইসলাম ঢোল প্রতীকে পেয়েছেন ৩ হাজার ২১০ ভোট।

ওই ইউনিয়নে ৩২ হাজার ২৫০ জন ভোটারের বিপরীতে ২১ হাজার ২০০ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সপ্তম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দুটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের একজন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী একজন জয়ী হয়েছেন।

এক পরিবারে নৌকাসহ পাঁচ প্রার্থীর কেউ জেতেনি

সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সেনুয়া ও বড়গাঁও ইউনিয়নের মোট ১৮টি ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন- ৪র্থ বারগাঁও ইউনিয়নে নৌকা প্রার্থী মোঃ ফয়জুল রহমান, ২২ নং সেনুয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মার্কা মতিয়ার রহমান।
উল্লেখ্য, সদর উপজেলার দুটি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৪৯ জন এবং সংরক্ষিত (মহিলা) সদস্য পদে ১৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ দুটি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬০৮৩ জন।

About Admin

Check Also

বিএনপিসহ আট দল নাম দেবে না

বিএনপিসহ আট দল নাম দেবে না

বিএনপিসহ আট দল নাম দেবে না, রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশ না নেওয়া বিএনপিসহ আটটি রাজনৈতিক দল নির্বাচন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.