adplus-dvertising

যুগে যুগে মুসলিম মনীষীদের শবেবরাত উদযাপন

যুগে যুগে মুসলিম মনীষীদের শবেবরাত উদযাপন, শবেবরাত ফারসি ভাষার দুটি যুক্ত শব্দ। ‘শব’ শব্দের অর্থ রাত,

‘বরাত’ অর্থ নাজাত বা মুক্তি। আরবি ভাষায়ও বরাত শব্দের ব্যবহার আছে। এই দুই শব্দ মিলে অর্থ হয় মুক্তির রজনী।

হাদিসের ভাষায় এ রাতকে ‘লাইলাতুন নিসফি মিন শাবান’ তথা ১৫ শাবানের রাত (১৪ তারিখ দিবাগত রাত) বলা হয়।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ dailypotrika.xyz

যুগে যুগে মুসলিম মনীষীদের শবেবরাত উদযাপন

এ রাতের ফজিলত সম্পর্কে কোরআন মাজিদে সরাসরি নির্দেশনা না থাকলেও হাদিস শরিফে নির্ভরযোগ্য সনদ বা বর্ণনাসূত্রে

একাধিক হাদিস বর্ণিত হয়েছে। বিখ্যাত সাহাবি মুয়াজ বিন জাবাল (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী কারিম (সা.) ইরশাদ করেছেন,

‘আল্লাহ তাআলা অর্ধ শাবানের রাতে অর্থাৎ শাবানের ১৪ তারিখ দিবাগত রাতে তাঁর সৃষ্টির দিকে রহমতের দৃষ্টি দেন এবং মুশরিক

ও বিদ্বেষ পোষণকারী ব্যতীত সবাইকে ক্ষমা করে দেন। মুহাদ্দিসিনে কেরামের ভাষ্যমতে, হাদিসটির মান সহিহ তথা বিশুদ্ধ।

এ জন্যই ইমাম ইবনে হিব্বান (রহ.) তাঁর প্রসিদ্ধ হাদিসের রচিত কিতাব ‘কিতাবুস সহিহ’ এই হাদিসটি উল্লেখ করেছেন।

তা ছাড়া এসংক্রান্ত অনেক হাদিস আছে

যেগুলো এর অর্থকে শক্তিশালী করে। তাই এই রাত আসার আগেই শিরক ও হিংসা থেকে মুক্ত থেকে মহান আল্লাহর রহমতের আশায় থাকা মুমিনের কর্তব্য। আর এ রাতের আমলের ব্যাপারে বিভিন্ন হাদিস থেকে বোঝা যায়, এই রাতে রাসুলুল্লাহ (সা.) রাত্রি জাগরণ করেছেন এবং দীর্ঘ আমলে মশগুল ছিলেন। তবে এই রাতে বিশেষ পদ্ধতির কোনো ইবাদত তিনি আদায় করেননি এবং সাহাবায়ে কেরামদেরও তা করার নির্দেশ দেননি।

যুগে যুগে মুসলিম মনীষীদের শবেবরাত উদযাপন

তা ছাড়া পূর্ববর্তী সালাফরা এ রাতে বিশেষ পদ্ধতির কোনো ইবাদত করেননি; বরং প্রত্যেকেই নিজ নিজ ব্যক্তিগত ইবাদতে মশগুল ছিলেন।

নিম্নে এ রাতে সালাফদের ইবাদত-বন্দেগি, পরের দিন রোজা ও তার ফজিলতের মূল্যায়ন নিয়ে তাঁদের কয়েকটি বক্তব্য তুলে ধরা হলো

এ রাতের করণীয় সম্পর্কে সালাফদের বক্তব্য ইবনে ওমর (রা.) বলেন, ‘পাঁচটি রাত এমন আছে, যে রাতের দোয়া ফিরিয়ে দেওয়া হয় না। জুমার রাত, রজবের প্রথম রাত, শাবানের ১৪ তারিখ রাত, দুই ঈদের রাত। ’ (মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক,

ওমর ইবনে আবদুল আজিজ (রহ.) আদি

ইবনে আরতাতের উদ্দেশ্যে লেখেন, ‘বছরের চারটি রাত তুমি অবশ্যই লক্ষ রাখবে। কেননা সেসব রাতে আল্লাহর রহমত বর্ষিত হয়—রজবের প্রথম রাত, শাবানের ১৪ তারিখ রাত, ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহার রাত। ’ (আত-তালখিসুল হাবির, ইবনে হাজার : ২/১৯১)

About Admin

Check Also

অনলাইন ক্লাসই কাল হলো কিশোরের

অনলাইন ক্লাসই কাল হলো কিশোরের

অনলাইন ক্লাসই কাল হলো কিশোরের, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.