adplus-dvertising

নোয়াখালীর ৯ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী

নোয়াখালীর ৯ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী , সিটি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে বিএনপি। নির্বাচনকে

প্রশ্নবিদ্ধ করে নির্বাচন থেকে বেরিয়ে আসার পথ খুঁজছেন তারা। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল বলেছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি

নানাভাবে ষড়যন্ত্র করছে। আসন্ন রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার দুপুর আড়াইটায় রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে

১৪ দলীয় ও মহাজোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ dailypotrika.xyz

নোয়াখালীর ৯ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী

সংবাদ সম্মেলনে কামাল বলেন, মিনু ও দুলু জনগণের সহানুভূতি পেতে তারেক রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন এবং নির্বাচনী প্রচারণায় বোমা মেরেছিলেন। তাদের ষড়যন্ত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে গেছে। আসলে বিএনপি জনগণের রায়কে ভয় পায়। এ জন্য

গয়েশ্বরসহ বিএনপির সব নেতারা মিথ্যাচার করছেন। তারা সুষ্ঠু নির্বাচনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।
কামাল আরও বলেন, কোটা আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি সরকারকে অস্থিতিশীল করতে চায়। তারা তারেক রহমানের টাকায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের

মাথা ধুয়ে এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ছাত্রদের সমর্থনে তারেক জিয়ার মদদে কোটা আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্রে যোগ দেয় বিএনপি-জামায়াত।
এর আগে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। তিনি বলেন,

যিনি ধানের শীষ দিয়ে ভোট দিচ্ছেন

তিনি নির্বাচনী ইশতেহারের ১৬ দফায় মিথ্যা বলেছেন। মেয়র পদ ছাড়ার পর বুলবুলের পাওনা ৬০ কোটি টাকা। সিটি করপোরেশনের কর্মচারীরা

যথাযথ বেতন বোনাস দিতে পারেননি। কিন্তু এখন বুলবুল সাহেব এসব নিয়ে মিথ্যাচার করছেন। নোয়াখালীর সুবর্ণচর ও হাতিয়া উপজেলার ১৩টি

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের চার বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে সুবর্ণচরে দুটি ও হাতিয়ায় দুটিতে জয়ী হয়েছেন।

এছাড়া বাকি নয়টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

ভোটগ্রহণ শেষে সোমবার রাতে দুই উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তারা ফলাফল ঘোষণা করেন।

নোয়াখালীর ৯ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী

সুবর্ণচরে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন চর ওয়াপদা ইউনিয়নে আব্দুল মান্নান (নৌকা), চরবাটায় আমিনুল ইসলাম ওরফে রাজীব (নৌকা), পূর্ব চরবাটায়

আবুল বাশার মঞ্জু (নৌকা), চর আমান উল্লাহে অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন (নৌকা), আইনজীবী আবুল বাশার (নৌকা)। (নৌকা)। চর কেরানীতে

বিপ, মোহাম্মদপুরে মহি উদ্দিন চৌধুরী (বিদ্রোহী)।

অপরদিকে হাতিয়ার সাত বিজয়ী প্রার্থী হলেন চরকিংয়ে মহিউদ্দিন আহমেদ (নৌকা), চর ঈশ্বরের মো. আলাউদ্দিন ওরফে আজাদ (নৌকা),

বুড়িরচরে ফখরুল ইসলাম (বিদ্রোহী), সোনাদিয়ায় তমরুদ্দী মোঃ রাশেদ উদ্দিন (নৌকা), মেহেদী হাসান (নৌকা), জাহাজমারায় আইনজীবী

মাসুম বিল্লাহ (বিদ্রোহী) ও নিঝুম দ্বীপে মো. দিনাজ উদ্দিন (নৌকা)।

About Admin

Check Also

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে , স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.